মেহেরপুর পৌর নির্বাচন মেয়র প্রার্থী মাহফুজুর রহমান রিটনের নির্বাচনী ইশতেহার।

স্টাফ রিপোর্টার: আগামী ২৫ এপ্রিল মেহেরপুর পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।  পৌরসভা প্রায় তিন দশক আগে ১৮৬৯ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত প্রাচীন এই পৌরসভা প্রথম শ্রেণীর মর্যাদা লাভ করেছে। তারপরও অযোগ্য-অদক্ষ ও দূর্বল পৌর নেতৃত্বের কারণে কাঙ্খিত উন্নয়ন হয়নি আমাদের এই শহরের। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের স্বদিচ্ছা থাকলেও কেবল একজন ব্যক্তির স্বেচ্ছাচারিতার কারণে শহরের রাস্তা-ঘাটের সংস্কার হয়নি, পৌর-কর্মচারিরা নিয়মিত বেতন ভাতা পায় না, অবকাঠামোগত উন্নয়ন হচ্ছে না, শহরের অলি-গলিতে বিদ্যুৎ-এর আলো জ্বলে না, ওয়াটর ট্রিটমেন্ট প্ল্যান থাকা সত্তেও সুব্যবস্থাপনার অভাবে পৌরবাসীকে দূষিত ও ময়লা পানি পান করতে হচ্ছে।
আমি মোঃ মাহফুজুর রহমান রিটন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্নেহ ধন্য মেয়র প্রার্থী। আমি মেয়র নির্বাচিত হলে যথাযথ পদক্ষেপের মাধ্যমে মেহেরপুর পৌরসভাকে বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ পৌরসভায় রুপান্তরিত করতে পারবো ইনশাআল্লাহ। সেজন্য সকল পৌরবাসির সমর্থন ও দোয়া কমনা করছি।
আমার নির্বাচনী ইশতেহার কর্মসূচী হলোঃ ১) আগামী ৫ বছরের জন্য কোন পৌরবাসিকে করের বোঝা চাপানো হবে না এবং হত-দরিদ্রদের জন্য হোল্ডিং কর মওকুফের ব্যবস্থা করা হবে। ২) চলাচলের অনুপযোগী রাস্তাসমূহের দ্রুত সংস্কার করা হবে। ৩) জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, পানি নিষ্কাশন ও মশা-মাছির উপদ্রব কমানোর জন্য পরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা গড়ে তোলা। ৪) শিশুদের বিনোদন ও মনো- দৈহিক বিকাশের জন্য একটি আধুনিক মানের পৌরপার্ক নির্মানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। ৫) মেহেরপুর পৌর কর্মচারীদের বকেয়া বেতন ভাতাদি পরিশোধপূর্বক নিয়মিত মাসিক বেতন-ভাতদি প্রদান করা হবে। ৬) পৌরবাসীর বিনোদনের জন্য মেহেরপুর শহর লাগোয়া ভৈরব নদের পাড়ে রাস্তা নির্মাণ এবং নির্মিতব্য রাস্তার দু’ধারে ফলদ বনজ ও শোভাবর্ধনকারী বিভিন্ন প্রজাতির ফুল ও গাছ লাগিয়ে সবুজের সমারোহ তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হবে। ৭) জনসচেতনতা সৃষ্টি ও কাউন্সেলিং এর মাধ্যমে যুবসমাজকে মাদকের কবল থেকে রক্ষা করার উদ্যোগ ড্রাগ ও মাদকসেবীদের নিরাময়ের জন্য পুর্নবাসন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা। ৮) আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে শহরের প্রত্যেক ওয়ার্ডের অলিগলিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিতকরণ।
৯) ঐতিহাসিক গড় পুকুরের সৌন্দর্য সংরক্ষণপূর্বক শিশুদের বিনোদন ও সৌখিন মৎস্য শিকারীদের মাছ ধরার ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে। ১০) পরিচ্ছন্ন, দুর্গন্ধমুক্ত ও রুচিসম্মত শহর গড়ার লক্ষে প্রয়োজনীয় সংখ্যক পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ১১) দুর্নীতিমুক্ত ও স্বচ্ছ মেহেরপুর পৌরসভা গড়ার লক্ষ্যে কমিউনিটি পর্যায়ে জবাবদিহিতা প্রদানের ব্যভস্থা করা হবে। ১২) স্যুয়ারেজ লাইনের মাধ্যমে পায়খানার মলমূত্র নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা হবে। ১৩) ক্ষুদ্র, মাঝারিসহ সর্বশ্রেণীর ব্যবসায়ীদের সার্বিক স্বার্থে বড়বাজার ও হোটেলবাজারে আধুনিক মানের মার্কেট নির্মাণ করা হবে। ১৪) হতদরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান। ১৫) সুবিধাবঞ্চিত, প্রতিবন্ধী ও দরিদ্র-ওমধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য উপবৃত্তি চালু করা। ১৯) মেহেরপুর শহরকে চুরি, ডাকতি, ছিনাতাই, রাহাজানি ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ থেকে মুক্ত রাখার জন্য পুরো পৌর এলাকাকে সি সি ক্যামেরার আওতায় আনা ও নিরাপত্তা বিধান। ১৬) দেশ বরেণ্য নগর-পরিকল্পনাবিদদের মাধ্যমে আরবান ডেভেলপমেন্ট প্ল্যান প্রণয়নসহ ২২টি কর্মসূচির বাস্তবায়ন করা হবে।
সকলের কাছে আশা করি নৌকা মার্কা প্রতীকে ভোট প্রদান করে সহযোগীতা করবেন এবং পৌরসভার উন্নয়নের সুযোগ দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *