বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৪ জনই চিহ্নিত সন্ত্রাসী

স্টাফ রিপোর্টার : মেহেরপুর সদর উপজেলার নুরপুরে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৪ জনই চিহ্নিত সন্ত্রাসী বলে জানিয়েছে পুলিশ। সোনাপুর গ্রামের অপহরণ পুর্বক দুই ব্যবসায়ী হত্যাসহ চাঁদাবাজি, বোমাবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল তারা।
আজ মঙ্গলবার দুপুরে মেহেরপুর পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান নিজ কার্যালয়ে বন্দুকযুদ্ধের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক বিফ্রিং করেন। তিনি বলেন, ওই দুই ব্যবসায়ী হত্যাকান্ডের সন্দিগ্ধ আসামি সোনাপুর গ্রামের সাদ্দাম আলী (২৬) ও রমেশ কর্মকার (২৩), পিরোজপুর গ্রামের কামরুজ্জামান কানন (২৫) ও টুঙ্গি গ্রামের সোহাগ (২৩) কে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। তারা জোড়া খুনের ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে অস্ত্র ও বোমার সন্ধান দেয়। সেইমত সোমবার দিনগত গভীর রাতে নুরপুর এলাকায় তাদের নিয়ে উদ্ধার অভিযানে যায় পুলিশ। এসময় তাদের সহযোগী অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি বর্ষণ করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা জবাব দেয়। এসময় ৭ জন পুলিশ আহত হয়। পুলিশ হেফাজতে থাকা ৪ আসামি পালাতে গেলে অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীদের গুলিতে তারা নিহত হয়।
ঘটনাস্থল থেকে ১টি রিভালবার, ১টি কাটা রাইফেল, ১১টি হাতবোমা, ২টি ছোরা ও ২টি রামদা উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত চার সন্ত্রাসীদের নামে বেশ কয়েকটি মামলা ও অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *